1. news.polytechnicbarta@gmail.com : admin :
  2. mdrakibbpi@gmail.com : Rakib Howlader : Rakib Howlader
  3. tanjid.fmphs@gmail.com : Tanjid : Tanjid
সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:০১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন আজ সংবাদ সম্মেলনে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড এর সাক্ষাৎকার পরীক্ষার সময়সূচি প্রকাশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ছে ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত! স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পলিটেকনিকে ভর্তি কার্যক্রম শুরু মৃত ব্যক্তির জন্য জীবিতদের যে আমল করতে বলে ইসলাম কারিগরি শিক্ষা ক্যাডার কর্মকর্তাদের চূড়ান্ত গ্রেডেশন তালিকা প্রকাশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুললে হবে না এইচএসসি পরীক্ষা এমপিওভুক্ত হচ্ছেন বেসরকারি কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আরও ২৪১ শিক্ষক ডিপ্লোমা ভর্তির ৩য় পর্যায়ের ফলাফল প্রকাশিত

ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের জব প্রস্তুতি: কখন? কিভাবে?

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম শনিবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৭৮৬ বার পঠিত

ইঞ্জিনিয়ার ইয়াছির আরাফাত : পলিটেকনিকে পড়ি তাই, সচেতনতার দরকার নাই। পাশ করলেই মিলবে কর্ম, কারিগরি শিক্ষার এটাই ধর্ম।” যারা এই কথার সাথে সহমত তাদের জন্য ভয়ংকর এক ভবিষ্যৎ অপেক্ষমাণ। একজন শিক্ষার্থী মাধ্যমিক স্তর শেষ করে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে এজন্য আসে, যাতে সহজেই কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করতে পারে। কিন্তু চার কোটির অধিক বেকারের দেশে নিজের পছন্দের চাকুরীর জুড়ি মেলা যে খুব সহজ নয় সেটা না মানার উপায়ও নেই। বাস্তবতার এই সহজ সমীকরণ মেনে নিয়ে তাইতো মধ্যবিত্ত/নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে আসা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়াররা নিজের পরিবারের হাল ধরতে গিয়ে চাহিদা ও যোগ্যতা অপেক্ষা বেশ নিম্নস্তরের কর্মকে বরণ করে নিতে বাধ্য হচ্ছে। তবে কর্ম জীবনের শুরুটা যেমনই হোক পরবর্তীতে যোগ্যতা অনুযায়ী ভাল একটা অবস্থানে স্থানান্তরিত হবে সবারই মনে এমন সুপ্ত বাসনা থেকে যায়। আর তাইতো বয়স ৩০ যতদিন না পার হয়, ততদিন চেষ্টা অব্যাহত থাকে একটা পছন্দের চাকরী বা কর্মকে আপন করে পাওয়ার। কিন্তু কোটি বেকারের এই দেশে চাকুরি নামক সোনার হরিণ খুজে পেতে যে কঠিন যুদ্ধে অংশ নিতে হয় তার জন্য প্রয়োজনীয় রসদ যোগান দেওয়া চাই সবার আগে। সারাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে যে সকল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ছড়িয়ে আছেন তারা আজ অনেকটা পিছিয়ে আছেন চাকরি যুদ্ধে অংশ নেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় রসদ তথা ভাল প্রস্তুতি নিয়ে নিজেকে পছন্দের চাকরীর যোগ্য করে গড়ে তুলতে। অথচ একটু সচেতন হলেই সঠিকভাবে নিজেকে প্রস্তুত করে অন্যদের থেকে এগিয়ে থাকা সম্ভব।

এখন প্রশ্ন হলো কখন ও কিভাবে শুরু করলে চাকরির যুদ্ধে নিজেকে সঠিকভাবে প্রস্তুত করতে পারব?
শুরুতেই বলব আপনি কি আপনার জীবনের লক্ষ্য স্থির করতে পেরেছেন? আপনি ক্যারিয়ার হিসেবে উদ্যোক্তা, সরকারি চাকরি নাকি বেসরকারি চাকরি কোনটা বেছে নিতে চান আগে সেই লক্ষ্য স্থির করুন তারপর কাজ শুরু করুন।
উদ্যোক্তা: যদি উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন থাকে তাহলে পছন্দের ক্ষেত্র অনুযায়ী কাজ শিখতে শুরু করুন। আপনি যে ফিল্ডের উদ্যোক্তা হবেন সেই ফিল্ডের আদি অন্ত সবকিছুই আপনার নখদর্পণে থাকতে হবে। উদ্যোক্তা হবেন, অর্থ বিনিয়োগ করবেন কিন্তু কোথায় কিভাবে কাজ হয় সেটা আপনার জানা না থাকলে কর্মী কাজে ফাঁকি দেবে। এক সময় ব্যবসায় দেউলিয়া হতে হবে।
কখন শুরু করবেন: এক্ষেত্রে বয়সের কোন সীমা নির্ধারিত নেই। ২০-২৫ বছর বয়সেও সফল উদ্যোক্তা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করার নজির রয়েছে।

সরকারি চাকরি: সরকারি চাকরি করার বাসনা থাকলে পড়তে হবে বেশি বেশি। এক্ষেত্রে ১ম বর্ষ থেকেই চাকরি রিলেটেড সাবজেক্ট গুলোকে নিজের মতো করে নোট করে গুছিয়ে রাখুন। মনে রাখবেন সরকারি চাকরির জন্য আপনার সিজিপিএ টা একটু স্বাস্থ্যবান রাখতে হবে। যারা পাশ করে ফেলেছেন তারা সুযোগ থাকলে কোন কোচিং সেন্টারে ভর্তি হয়ে যান। নিয়োগ পরীক্ষার প্যাটার্ন ও সিলেবাস সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ধারণা নিয়ে সে অনুযায়ী পড়ালেখা শুরু করে দেন। আর যাদের কাছে এ ধরনের কোন সুযোগ নেই, তারা চাইলে অনলাইনের মাধ্যমেও পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি নিতে পারেন।
আপনার হাতে যদি কোন স্মার্ট ডিভাইস (স্মার্টফোন, ট্যাব, নোটবুক, ল্যাপটপ) ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকে তাহলে আপনিও দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে মানসম্মত শিক্ষকদের মাধ্যমে চাকরির জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে পারেন। বিস্তারিত জানতে এই লিংকে প্রবেশ করুন: http://tiny.cc/10TkJob
এখানে কোন কোর্স ফি নেওয়া হয় না, শিক্ষার্থীদের আগ্রহ যাচাই করার জন্য ও পূর্ণাঙ্গ গাইডলাইন নিশ্চিত করতে নাম মাত্র একটি রেজিস্ট্রেশন চার্জ নেওয়া হয়।

বেসরকারি চাকরি: বেসরকারি চাকরির জন্য আপনার সিজিপিএ গুরুত্বপূর্ণ নয়। গুরুত্বপূর্ণ হলো আপনার কাজ ও অভিজ্ঞতা। সেক্ষেত্রে পছন্দের ক্ষেত্র অনুযায়ী কাজে দক্ষতা অর্জন করতে পারলে চাকরি আপনাকে খুঁজে নেবে। কখন শুরু করবেন: ১ম বর্ষ থেকেই শুরু করবেন। প্রয়োজনে বিনা পারিশ্রমিকে কোন প্রতিষ্ঠানে সময় দিন।

মনে রাখবেন, আপনি যদি পরিশ্রমী ও মানসিকভাবে শক্তিশালী হয়ে থাকেন তাহলে যে কোন প্রতিকুল অবস্থা মোকাবেলা করে বিজয় ছিনিয়ে আনতে সক্ষম হবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © polytechnicbarta.com
Theme Customized BY LatestNews