1. news.polytechnicbarta@gmail.com : admin :
  2. contact.mdrakib@gmail.com : Rakib Howlader : Rakib Howlader
  3. tanjid.fmphs@gmail.com : Tanjid : Tanjid
রোজা রেখে যেসব কাজ করবেন না - পলিটেকনিক বার্তা
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৬:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
মেট্রোরেলের সর্বনিম্ন ভাড়া ২০ টাকা, সর্বোচ্চ ৯০ ব্যক্তি উদ্যোগে অর্ধ শত পরিবারে তৌহিদের ঈদ উপহার বিতরণ ডিপ্লোমা শেষ করা শিক্ষার্থীরা সব বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ পাবেন: শিক্ষামন্ত্রী মুহাম্মদ (সা.) এর পোশাক দেখতে ইস্তাম্বুলে হাজারো মানুষের ঢল জঙ্গিবাদে জড়ানোয় পলিটেকনিক পড়ুয়া ছাত্র গ্রেপ্তার কর্ম উপযোগী শিক্ষার জন্য কারিগরি শিক্ষাক্রম পরিমার্জন করা হবে: দীপু মনি বাংলাদেশ থেকে এ বছর হজে যেতে পারবেন ৫৭ হাজার ৮৫৬ জন উচ্চশিক্ষা গ্রহণে বিনামূল্যে শেখার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে রোজা রেখে যেসব কাজ করবেন না কারিগরি শিক্ষায় অগ্রগতির প্রশংসা মার্কিন রাষ্ট্রদূতের, দাবি মন্ত্রণালয়ের

রোজা রেখে যেসব কাজ করবেন না

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম মঙ্গলবার, ১২ এপ্রিল, ২০২২
  • ৯৭ বার পঠিত

রমজান সিয়াম সাধনা ও আত্মশুদ্ধির মাস। মহান আল্লাহর নৈকট্য অর্জনের মাস। এ মাসে এমন কোনো কাজ করা উচিত নয়, যা রোজার মহিমা ক্ষুণ্ন করে। রোজার মতো মহিমান্বিত ইবাদতকে ত্রুটিযুক্ত করে।

জেনে রাখা উচিত যে, শুধু পানাহার ও স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক থেকে বিরত থাকার নামই রোজা নয়। রোজাদারের জন্য সব ধরনের অশ্লীল ও পাপ থেকে বিরত থাকাও আবশ্যক।

অশ্লীল কথাবার্তা ও গালাগাল

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, ‘যখন তোমাদের কেউ কোনো দিন রোজা অবস্থায় ভোরে উপনীত হয়, সে যেন অশ্লীল কথাবার্তা ও জাহিলি আচরণ না করে। যদি কেউ তাকে গালাগাল করে বা তার সঙ্গে ঝগড়া-বিবাদে লিপ্ত হতে উদ্যত হয় তখন সে যেন বলে, আমি রোজা পালনকারী, আমি রোজা পালনকারী।’ (মুসলিম, হাদিস : ২৫৯৩)

দূঃখের বিষয় হলো- আমরা অনেকে রোজার মাসেও গালাগালের মতো এই নিকৃষ্ট অভ্যাসটি ত্যাগ করতে পারি না। নুন থেকে চুন খসলেই অন্যকে গালি দিয়ে বসতে ন্যূনতম দ্বিধাবোধ করি না। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। শুধু রোজা কেন, স্বাভাবিক অবস্থায়ও কাউকে গালি দেওয়া মুমিনের কাজ নয়। গালাগাল, ঝগড়া-ফ্যাসাদ ইত্যাদি অভ্যাস মুমিনের সঙ্গে যায় না।

আল্লাহর রাসুল (সা.) বলেছেন, মুসলমানকে গালি দেওয়া ফাসেকি। আর তার সঙ্গে লড়াই ঝগড়া করা কুফরি। (বুখারি, হাদিস : ৬০৪৫)

কথাবার্তায় অশ্লীলভাষা মুমিনের কাজ নয়

মহানবী (সা.) অশ্লীলভাষী ছিলেন না। তিনি কথাবার্তায় অশ্লীলভাষার প্রয়োগ পছন্দ করতেন না। তাই মুমিনদের তিনি এ ব্যাপারে বিশেষভাবে সতর্ক করেছেন। হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, ‘মুমিন কখনো দোষারোপকারী, অভিশাপদাতা, অশ্লীলভাষী ও গালাগালকারী হয় না।’ (তিরমিজি, হাদিস : ২০৪৩)

অনেকে তো রোজা রেখেই নিশ্চিন্তে মা-বাবা তুলে গালি দিয়ে বসে। অথচ রাসুল (সা.) বলেন, ‘কবিরা গুনাহগুলোর একটি হলো নিজের মা-বাবাকে অভিশাপ করা।’ জিজ্ঞেস করা হলো, ‘আল্লাহর রাসুল, মানুষ নিজের মা-বাবাকে কিভাবে অভিশাপ করে?’ তিনি বলেন, ‘যখন সে অন্যের বাবাকে গালাগাল করে, তখন সে নিজের বাবাকেও গালাগাল করে থাকে। আর যে অন্যের মাকে গালি দেয়, বিনিময়ে সে তার মাকেও গালি দেয়।’ (বুখারি, হাদিস : ৫৯৭৩)

মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে এ ধরনের ঘৃণ্য কাজ থেকে বিরত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © polytechnicbarta.com
Theme Customized BY LatestNews