1. news.polytechnicbarta@gmail.com : admin :
  2. contact.mdrakib@gmail.com : Rakib Howlader : Rakib Howlader
  3. tanjid.fmphs@gmail.com : Tanjid : Tanjid
রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ১২:৪৬ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
তিন মাসের মধ্যে এক দিনে করোনায় সর্বোচ্চ শনাক্ত নির্বাচনের কারণে পেছাল ডিপ্লোমা পরীক্ষা, নতুন সূচি প্রকাশ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স-মাস্টার্স পড়তে পারবেন পলিটেকনিক শিক্ষার্থীরা ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী আজিজুল হক সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস শুরু ২৪ মে, হল খুলছে ১৭ মে ২০ লাখ ডোজ টিকা আসছে আজ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পরীক্ষা শুরু গ্রাফিক আর্টস ইনস্টিটিউটের ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়েই ভাষার অধিকার অর্জন করতে হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী হল খুলে পরীক্ষা নেবে বাংলাদেশ সুইডেন পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট

ডিপ্লোমা শিক্ষার জন্য আত্মঘাতি ‘ভর্তি নীতিমালা’ বাতিলের দাবি আইডিইবির

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম রবিবার, ৫ জুলাই, ২০২০
  • ৫৯২ বার পঠিত
দেশের পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তির ক্ষেত্রে কোনো রকমের বয়সের সীমাবদ্ধতা না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
এটি বাস্তবায়ন হলে ক্লাসের পরিবেশ নষ্ট এবং সার্টিফিকেটের গুরুত্ব কমবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তাই ডিপ্লোমা শিক্ষার জন্য আত্মঘাতি এই নতুন ভর্তি নীতিমালা-২০২০ বাতিলের দাবি জানিয়েছে ইনস্টিটিউট অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইডিইবি)।
পাশাপাশি বিগত ২০১৯ সালের ভর্তি নীতিমালা বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছে দেশের ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের এই বৃহৎ সংগঠনটি।
শনিবার (০৪ জুলাই) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্তের কঠোর বিরোধীতা করে আইডিইবি।
বিজ্ঞপ্তিতে আইডিইবি বলছে, গভীর উদ্বেগ, উৎকন্ঠা ও ক্ষোভের সঙ্গে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, গত  আগস্ট শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দেশের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তির নীতিমালায় বয়স অবারিত করা এবং গত বছরের ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ এর পরিবর্তে হ্রাস করে ২.৫০ করার মত আত্মঘাতি ও হটকারী সিদ্ধান্ত ঘোষণা দেয়া হয়েছে। যার প্রেক্ষিতে দেশের কারিগরি শিক্ষাকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে গিয়ে দাঁড়াবে। দেশের শিক্ষাবিদ ও সরকার কর্তৃক কোনো স্টাডি ছাড়াই ঘোষিত হটকারী নীতিমালা বাতিল করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার কর্তৃক অনুমোদিত ২০১৯ সালের নীতিমালা অনুযায়ী দেশের সকল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ২০২০ সালে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ছাত্র ভর্তি করার জন্য আইডিইবি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভা থেকে আহ্বান জানানো হয়।
প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে ভর্তি নীতিমালায় ন্যূনতম জিপিএ ৩.৫০ ও গনিতে জিপি ৩.০ এবং ২০১৭-২০১৮-২০১৯ (৩ বছরের) এর শিক্ষার্থীদের ভর্তির সুযোগ ছিল। ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং এ ভর্তিতে বয়সে বাঁধা তুলে দিলে সরকারি পলিটেকনিক এর শিক্ষার পরিবেশ কুলশিত হবে ও বয়সের কারণে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভারসাম্য বিঘ্নিত হবে।
অন্যদিক ২০১৯ সালে সরকারি পলিটেকনিকে ৪৯ হাজার আসনের বিপরীতে ৯৮ হাজার আবেদন পরেছিল, তাহলে কি কারণে ৩.৫০ এর পরিবর্তে এ বছর ২.৫০ এ নামানো হলো- তা কারো বোধগম্য নয় এবং তা কারিগরি শিক্ষার মান নিম্নমুখী করার ষড়যন্ত্র বলে মনে করছে আইডিইবি।
আইডিইবির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী যেখানে কোভিড-১৯ এর মহাসঙ্কট নিরসনে কাজ করে যাচ্ছেন, ঠিক সেই মুহূর্তে পলিটেকনিক শিক্ষা ব্যবস্থায় এমন একটি অগ্রহণযোগ্য, আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত দিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় শিক্ষার এই গুরুত্বপূর্ণ সেক্টরটিকে অশান্ত করে তুলেছেন যা অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্খিত।
তিনি বলেন, শনিবার সকাল ১১টায় আইডিইবি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি ও সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত ভার্চ্যুয়াল সভা থেকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এমন হটকারী সিদ্ধান্ত বাতিল করে ২০১৯ এর বিধিমালা তথা জিপিএ ৩.৫০ ও গণিতে জিপি ৩.০ এবং ২০১৮-২০১৯-২০২০ (৩ বছরের) এর শিক্ষার্থীদের ভর্তির যোগ্যতা নির্ধারণ করে ভর্তির নীতিমালা চূড়ান্ত করার আহ্বান জানিয়েছে। আশা করছি বিষয়টি বিবেচনায় নেয়া হবে। অন্যথায় আমরা আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © polytechnicbarta.com
Theme Customized BY LatestNews